মনোনয়ন পেয়েছেন নায়ক সোহেল রানা

471

দেশীয় চলচ্চিত্রের ‘ড্যাশিং হিরো’-খ্যাত নায়ক সোহেল রানা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে যাচ্ছেন। জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য তিনি। দলটি থেকে বরিশাল-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন মাসুদ পারভেজ ওরফে সোহেল রানা।

জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে মহাজোট নেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যেসব আসন দাবি করা হয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে এ আসনটি। সবকিছু ঠিক থাকলে এই আসন থেকেই মহাজোটের প্রার্থী হবেন সোহেল রানা।

সোহেল রানার মতো একজন জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব জাতীয় পার্টির প্রার্থী হওয়াতে এলাকায় দলীয় নেতা কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ দেখা গেছে।

এদিকে একই আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. শাহে আলম তালুকদার। গেলো মঙ্গলবার দলের পক্ষ থেকে শাহে আলম তালুকদারকে নতুন করে প্রার্থী ঘোষণা করা হয়।

ফলে বরিশাল-২ আসন থেকে সোহেল রানা নাকি মো. শাহে আলম তালুকদার? কে প্রার্থী হতে যাচ্ছেন তা জানার জন্য কয়েকটা দিন অপেক্ষায় থাকতে হবে। তবে সোহেল রানা এই আসনে প্রার্থী হবার ব্যাপারে আশাবাদী।

মাসুদ রানা, এপার ওপার, গুনাহগার, মিন্টু আমার নাম, হাইজ্যাক, প্রতিহিংসা, চ্যালেঞ্জ, নাগপূর্ণিমা, দুস্ত দুশমন, আসামী হাজির, লালু ভুলু, পেনশন, তিন কন্যা, বীর পুরুষ, বজ্রমুষ্ঠি, কমান্ডার, দাগী, ভুল সবই ভুল, শক্তির লড়াই, ক্ষ্যাপা বাসু, পরাধীন, বিশ্বপ্রেমিক, অজান্তে, হাঙর নদী গ্রেনেডসহ অসংখ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ওরা ১১ জন ছবির প্রযোজক হিসেবে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন তিনি। ১৯৭৩ সালে কাজী আনোয়ার হোসেনের বিখ্যাত কাল্পনিক চরিত্র মাসুদ রানা একটি গল্প অবলম্বনে মাসুদ রানা ছবির নায়ক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। একই ছবির মাধ্যমে তিনি মাসুদ পারভেজ নামে পরিচালক হিসেবেও যাত্রা শুরু করেন।

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পে তার অসামান্য অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকারের কাছ থেকে তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন সোহেল রানা।