করোনা সম্পূর্ণ নির্মূলে সক্ষম ওষুধ আবিষ্কারের দাবি অস্ট্রেলীয় চিকিৎসকের

61

করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯) সম্পূর্ণরূপে নির্মূলে সক্ষম ওষুধ আবিষ্কারের দাবি করেছেন অস্ট্রেলিয়ার এক সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ। এই চিকিৎসক ইউনিভার্সিটি অব কুইন্সল্যান্ডের একজন অধ্যাপক। ডেভিড প্যাটারসন নামের ওই অধ্যাপক জানান, তিনি ও তার গবেষণা দলের বিশ্বাস তারা করোনা প্রতিকারে সক্ষম দু’টি ওষুধ আবিষ্কার করতে পেরেছেন। এর মধ্যে প্রথমটি হচ্ছে, এইচআইভি ভাইরাস দমনে ব্যবহৃত একটি ওষুধ ও অপরটি হচ্ছে, ম্যালেরিয়া বিরোধী চিকিৎসায় ব্যবহৃত একটি ওষুধ (ক্লোরোকুইন)। ওষুধটির বিরুদ্ধে ম্যালেরিয়াবাহী মশার মধ্যে জেনেটিক প্রতিরোধ গড়ে ওঠায় ক্লোরোকুইন ব্যবহার হয়নি দীর্ঘ সময় ধরে। অনেকেই এই ওষুধটির কথা ভুলে গেছেন। ওষুধ দু’টি কয়েকজন রোগীর ক্ষেত্রে প্রয়োগ করে সফলতা পাওয়া গেছে। এ খবর দিয়েছে দ্য ডেইলি মেইল। খবরে বলা হয়, করোনা ভাইরাসে এখন পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে প্রাণ হারিয়েছেন সাড়ে ৬ হাজার মানুষের বেশি। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১ লাখ ৭০ হাজার মানুষ। বর্তমানে এটি প্রতিকারে কোনো ওষুধ আবিষ্কার হয়নি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আগামী বছরের আগে তেমন কোনো ওষুধ আবিষ্কারের সম্ভাবনা কম। এর মাঝে আশার বাণী শুনালেন ওই চিকিৎসক।  প্যাটারসন বলেন, অস্ট্রেলিয়ায় করোনা নিয়ে প্রবেশকারী কয়েকজন রোগীর চিকিৎসায় ওষুধ দু’টি প্রয়োগ করা হয়েছে। তাতে দেখা গেছে, রোগীর শরীর থেকে ভাইরাসটির সকল চিহ্ন মুছে গেছে। তবে এখনো ক্লিনিক্যাল পর্যায়ে এর পরীক্ষা চালু করা হয়নি। প্যাটারসনের প্রত্যাশা, চলতি মাসের মধ্যেই তিনি ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা শুরু করতে পারবেন। তিনি বলেন, আমরা আপাতত অস্ট্রেলিয়াজুড়ে ৫০টি হাসপাতালে ওষুধ দু’টি নিয়ে পরীক্ষা চালাতে চাই। আলাদাভাবে ও একসঙ্গে মিশ্রণ ঘটিয়ে ওষুধ দু’টি ব্যবহারের পরিকল্পনা রয়েছে। তিনি জানান, কয়েকজন রোগীর ক্ষেত্রে সফলতা পাওয়া গেলেও নিয়ন্ত্রিত পদ্ধতিতে ওষুধ দু’টির পরীক্ষা চালানো হয়নি।

সৌজন্যে : মানবজমিন  অনলাইন।