খুলনার বিভিন্ন হাসপাতালে ডাক্তারের চেম্বারে ঔষুধ কোম্পানির (এস,আর) দের অত্যাচারে ভোগান্তীতে রুগী ও স্বজনরা

75

 বাদশা আলম
হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডাক্তারের চেম্বারে দেশের নামি-দামিসহ নাম স্বর্বস্ব ঔষুধ কোম্পানির মেডিকেল প্রতিনিধি (এস,আর) দের অত্যাচাওে রুগী ও তার স্বজনরা ভোগান্তীতে চরমে।
সরজমিনে ঘুরে দেখা যায় সরকারি-বেসরকারী চেম্বারে অসুস্থ মানুষ যাচ্ছে ডাক্তার দেখাতে আর দেখানোর পর প্রেসক্রিপশন (চিকিৎসাপত্র) নিয়ে বের হওয়ার সাথে সাথে রুগী বা রুগীর আপনজনদের হাত থেকে কোন কথা বার্তা বলা ছাড়া প্রেসক্রিপশন নিয়ে মোবাইল ফোনে ছবি তোলায় ব্যাস্ত থাকে। বিভিন্ন ওষুধ কেম্পানীর মেডিকেল প্রতিনিধি (এস,আর)রা এতে চরমভাবে অত্যাচারিতসহ মারাত্মক ভাবে ভোগান্তীর শিকার হচ্ছে। এসব চিত্র দেখা যায়, খুলনা সদর হাসপাতাল, সিটি নার্সিং হোম, শিশু হাসপাতাল, গরিব নেওয়াজ হাসপাতাল, ইসলামী হাসপাতাল।
শান্তিধাম মোড়ের আশপাশে কিছু নামী ডাক্তারের চেম্বারের রুগীদের জন্য বসার বিশেষ ব্যবস্থা সেখানেও মেডিকেল প্রতিনিধি (এস,আর) দের একই অবস্থা। খুলনায় আশা অনেক রুগীর মধ্যে তাদের আপনজন স্বজনরা সালমা বেগম, আঃ রহিম, মোঃ রফিক , মোছাঃ কারিমা, আঃ কুদ্দুস তারা দিঘলিয়া, পাইকগাছা, বালিরডাঙ্গা সহ বিভিন্ন গ্রাম থেকে এসেছে খুলনায় সরকারী হাসপাতাল ও বেসরকারী হাসপাতা, ক্লিনিক সহ বিভিন্ন ডাক্তারের নিকট তাদের ছোট ছেলে মেয়েদের সর্দিজ¦র , ডায়রিয়াসহ বিভিন্নভাবে অসুস্থ অবস্থায় নিয়ে আসছি কিন্তু ডাক্তার দেখানোর পর ডাক্তার সাহেব প্রেসক্রিপশনটা নিয়ে মোবাইল ফোনে ছবি তোলায় ব্যাস্ত এনিয়ে আমরা মারত্মাকভাবে অত্যাচারিত বা নাজেহাল হচ্ছি। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আমাদের দাবী আমরা ডাক্তারদের নিকট অসুস্থাকে সুস্থ্য করে নিতে এনে আরও আমাদের রুগীসহ আমরা আরও অসুস্থ হয়ে পড়ছি এর পরিত্রান পাওয়ার ব্যবস্থা নিতে উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানাচ্ছি। একই চিত্র রুপসা, কাজদিয়া, ফকিরহাট হাসপাতালও বিভিন্ন ক্লিনিককে আশা মোছাঃ সুমাইয়া, আলী আকবর, মোঃ শরিফ, মোঃ জাহাঙ্গীর সহ অনেকে এই মেডিকেল প্রতিনিধি(এস,আর) দের বিষয়ে বলেন এদের কারনে চরম ভাবে আমরা ভোগান্তীর শিকার হচ্ছি। আমরাও এদের এহেন আচারণ থেকে রেহাই পেতে প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।