ডুমুরিয়া থানায় অভিযোগের পরেও ধরা ছোঁয়ার বাইরে কথিত জ্বীনের বাদশা মালেক

106
স্টাফ রিপোর্টার। 
সম্প্রতি ডুমুরিয়া গুটুদিয়ার কোমলপুরের বাসিন্দা কথিত জ্বীনের বাদশা মালেক শেখ (৫০) তুলা রাশির লোক হয়ে নিজেকে দীর্ঘদিন ধরে জ্বীনের বাদশা বলে দাবি করে আসছেন। সহজ সরল লোকদের বোকা বানিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে কয়েক লক্ষ টাকা। মানুষের ক্ষতি করতে পারে কিংবা লজ্জার কারনে অনেকেই কথিত জ্বীনের বাদশা মালেক এর প্রতারণার শিকার হয়ে ভয়ে মুখ খুলতে পারছে না।  উল্লেখ থাকে যে স্থানীয় গুটুদিয়া ইউনিয়ন পরিষদে মুচলিকা দিয়ে বেঁচে যায় এই প্রতারক মালেক। ডুমুরিয়া থানায় মালেক এর বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করা হয় এমনকি এই কথিত জ্বীনের বাদশা মালেক এর ভন্ডামির স্পষ্ট ভিডিও থানায় জমা দেওয়া হয় যেখানে পরিষ্কার ভাবে দেখা যায় তার প্রতারণার চিত্র তারপরেও তেমন কোন আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করতে দেখা যায় নি ডুমুরিয়া থানা পুলিশকে। এভাবে যদি ভন্ড প্রতারকরা বেঁচে যায় আইনের ফাঁক  ফোকর দিয়ে তাহলে এই ভন্ডামির মাত্রা দ্বিগুন হাড়ে বেড়ে যেতে পারে। স্থানীয় সূএে জানা যায়, অত্যান্ত সুকৌশলে জ্বীনের বাদশা মালেক রাতের আধারে গোপনে তার কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। কোন শক্তির বলিয়ানে মালেক এর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ ও প্রমান থাকার পর ও কোন প্রকারের শাস্তি না পেয়ে মালেক ঘুড়ে বেড়াচ্ছে বলে প্রশ্ন জাগে সাধারন মানুষের মনে। আসলে এই কবিরাজি ভন্ডামির ব্যবসার মূল হোতা মালেক এর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হলে আগামীদিনে হাজারো জ্বীনের বাদশার জন্ম হতে পারে বলে মনে করেন এলাকার সচেতন মহল।