পবিত্র রমজান মাসে ৫ ওয়াক্ত নামাজ ও তারাবীতে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা

28

ডেক্স রিপোর্ট।

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ রোধ কার্যক্রমের মধ্যে শুরু হতে যাওয়া পবিত্র রমজান মাসে পাঁচ ওয়াক্ত ও তারাবি নামাজের বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয় নতুন নির্দেশনা দিয়েছে। মসজিদে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ও তারাবিতে ইমামসহ সর্বোচ্চ ২০ জন অংশগ্রহণ করতে পারবে বলে জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

আজ সোমবার (১৪ এপ্রিল) থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এ নির্দেশনা কার্যকর থাকবে বলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। বিকেলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এক জরুরি বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত হয়। পরে সন্ধ্যায় মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

১. মসজিদে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের প্রতি ওয়াক্তে সর্বোচ্চ ২০ জন মুসল্লি অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

২. তারাবির নামাজে খতিব, ইমাম, হাফেজ, মুয়াজ্জিন ও খাদিমসহ সর্বোচ্চ ২০ জন মুসল্লি অংশগ্রহণ করবেন।

৩. এছাড়া, জুমা’আর নামাজে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মুসল্লিগণ অংশগ্রহণ করবেন।

৪. মুসল্লিগণকে পবিত্র রমজানে তিলাওয়াত ও জাকাতের মাধ্যমে মহান আল্লাহর রহমত ও বিপদ মুক্তির জন্য দু’আ করার অনুরোধ করা হলো

উল্লেখ্য, আগামী ১৪ এপ্রিল (বুধবার) ভোর ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত জারি করা হয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ। করোনায় এই পরিস্থিতিতে শুরু হতে যাওয়া পবিত্র রমজান মাসে জুমা ও তারাবি নামাজের বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়কে দিক নির্দেশনা দিতে বলা হয়। প্রজ্ঞাপনে সেখানে বলা হয়, স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে জুমা ও তারাবি নামাজের বিষয়ে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় নির্দেশনা জারি করবে।

গেল ৫ এপ্রিল থেকে চলমান থাকা বিধিনিষেধেও এ বিষয়ে ধর্মমন্ত্রণালয়কে পদক্ষেপের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। সে পরিপ্রেক্ষিতে ৬ এপ্রিল এক নির্দেশনায় রমজানে মসজিদে ইফতার ও সেহরির আয়োজন না করার বিষয়ে বলা হয়।

এছাড়া যেকোনো অসুস্থ ব্যক্তি এবং অসুস্থদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি জামায়াতে অংশগ্রহণ না করার বিষয় যুক্ত করে একটি অফিস আদেশ জারি করে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না বলেও উল্লেখ করা হয়।