অভয়নগরের বাঘুটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বাবুলের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ

231

মেহেদী হাসান ইরান, জেলা প্রতিনিধি (যশোর)
নানা কারনে বাঘুটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান  বাবুল আক্তার বাব বারই সংবাদের শিরোনাম হয়ে সমালোচিত। দূরনীতির দায়ে নির্বাচিত চেয়ারম্যান হয়ে ও ক্ষমতা হারিয়েছিলেন কিছুদিন আগে।এবার প্রকল্পদূরনীতি অভিযোগ এনে অভয়নগর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন খোদ ইউপি সদস্যরা। বাঘুটিয়া ইউনিয়ন পরিদর্শন করে ও লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে  ইউনিয়ন পরিষদে বরাদ্ধ এলজিএসপি -৩ এর প্রকল্প ২০২০/২১ এর বরাদ্ধের কাজে ব্যপক অনিয়ম  করেছে। ৫ নং ওয়ার্ডের মেম্বর আলি আব্বাছ জানিয়েছেন। চেয়ারম্যান বাবুল আক্তার চুড়ান্ত তালিকা থেকে কয়েক জন মেম্বর কে বাদদিয়ে কারো সাথে পরামর্শ না করে সেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে প্রকল্পের তানলিকা অনুমোদন কারেছে । যে কারনে কোন ওয়ার্ডে একাধিক কাজ পেয়েছে আর বাকী ওয়ার্ডে কোন কাজ পাইনি। তাতে ওয়ার্ড গুলাে এল , জি , এসপি -৩ , ২০২০/২১ অর্থ বছরের কাজ থেকে বঞ্চিত। অভিযোগ সূত্রে আরো জানাগেছে চেয়ারম্যান বাবুল আক্তার পরিষদে বরাদ্ধকৃত আন্ত জেলা ফেরিঘাটের টাকা , এবং গভীর নূপকূপ স্থাপন এর কোন টায় পরিষদে আলােচনা না করে নিজের মত করে প্রকল্প জমা দেয় । উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্ত কাছে লিখিত অভিযোগের তালিকায় স্বাক্ষর করেছেন। ৫ নং ওয়ার্ডের মেম্বর আলী আব্বাছ, গোলাম মোস্তফা মুছা১নং ওয়ার্ড,রেবেকা বেগম সংরক্ষিত ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডের সদস্য, হাফিজুর রহমান ৩নং ওয়ার্ড, গোলাম হোসেন ৯ওয়ার্ড ও, তবিবুুর রহমান ৮ নং ওয়ার্ড। এবিষয়ে ৪ নং ওয়র্ডের মেম্বর ওসমান আলি জানিয়েছেন প্রকল্পের টাকা বরাদ্ধ না দেওয়ায় কিছু প্রজেক্ট বন্ধ থাকায় সকলে ঠিকমত বরাদ্ধ পাইনাই। চেয়ারম্যান বাবুল আক্তার  তার ব্যবহৃত ০১৭১০৯৮৯৮৫১ নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করাহলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। সূত্র জানিয়েছে এর আগে বাবুল চেয়ারম্যান এর নামে অনেক অনিয়ম ও দূরণীতি প্রমাণ থাকায় ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের ভি জি ডি ২৫৫ জনের চাউল চুরির অপরাধে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করার কারণে তিনি চেয়াম্যান সাচপেন্ট হয়েছিল ।