ফকিরহাট খাজুরায় ওয়াপদার ভেড়ীবাঁধে ভয়াবহ ভাঙ্গন মেরামতের দাবী

14
বাদশা আলম, ফকিরহাট প্রতিনিধি‌‌ (বাগেরহাট)
বাগেরহাট  জেলার ফকিরহাট উপজেলার লখপুর ইউনিয়নের খাজুরা ৩নং ওয়ার্ডের জাহাজঘাটা ওয়াপদার ভেড়ীবাঁধে ভাঙ্গন এখন চরম আকার ধারণ করেছে। বর্ষার মৌসুমে  অতিবর্ষণে  ও জোয়ারের পানি বৃদ্ধিতে
ওয়াপদার ভেড়ীবাঁধ পুরোপুরী ভেঙ্গে দুইটি গ্রামে বসবাসরত কয়েক হাজার পরিবার পানিতে তলিয়ে চরম ক্ষতির সম্মুখীন হবেন। অতিদ্রুত ভেড়ীবাঁধের একপাশের্ব টেকসই ফাইলিং সহ ভেড়ীবাঁধ পূনঃ মেরামত করার জন্য স্থানীয় জনগন জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
জানা গেছে,ফকিরহাটের লখপুর ইউনিয়নের খাজুরা ৩নং ওয়ার্ডের শেষ সিমানা অথার্ৎ সিমান্তবতর্ী খাজুরা তেমাথা মোড় হতে আশ্রায়ন প্রকল্প ও খাজুরা ১০গেটের উপর দিয়ে লখপুর কাহারডাঙ্গা জামে মসজিদ পর্যন্ত পানি উন্নয়ন বোর্ড পানি রক্ষা একটি ভেড়ীবাঁধ নিমার্ণ করেন। এই বেড়ীবাঁধের কারনে যুগীখালী নদীর উজান ও জোয়ারের পানি সহজেই লোকালয়ে প্রবেশ করতে পারেনা। কিন্তু চলতি বষার্ মৌসুমে প্রবল বৃষ্টি আর উজানের পানির চাপে পানি উন্নয়ন বোর্ড কতর্ৃক নির্মিত ভেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে তা এখন চরম থেকে চরম আকার ধারন করেছে। যে কোন মুর্হুত্বে বাকি ভেড়ীবাঁধ টুকু ভেঙ্গে জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করে দুইগ্রামের বাসিন্দাদের চরম ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে। ভেড়ীবাঁধের উপরী অংশে বসবাসরত মোঃ আজিত শেখ, মোঃ গফ্ফার শেখ, মোঃ রিয়াজুল ইসলাম, আশরাফ শেখ ও পল্লী চিকিৎসায়ক মোঃ মিকাইল হোসেন বলেন, ভেড়ীবাঁধের একটি অংশে ছোট্ট একটি কালভাট রয়েছে। যে কালভাটটির নিচের অংশ ভেঙ্গে সেখান থেকে প্রথমে ছিদ্র হয়ে পানি উঠানামা করতে করতে তা এখন বড় আকার ধারন করেছে। শুধু তাই নয়,প্রবাহমান যুগীখালী নদীর পূর্বপাশের্ব যেনতেন ভাবে কয়েকটি বাঁশ কেটে তা দিয়ে অউন্নত ফাইলিং দেওয়া হয়েছে। যা ভেড়ীবাঁধে তেমন কোন কাজে আসেনী।
স্থানীয় বাসিন্দারা আরো বলেন, এখন প্রতিদিন যে পরিমান প্রবল বর্ষণ শুরু হয়েছে, তাতে করে জোয়ারের পানি আরো বৃদ্ধি পেলে যে কোন মুর্হুত্বে ভেড়ীবাঁধ পুরোপুরী ভেঙ্গে যেতে পারে। আর ভেঙ্গে গেলে তা হবে এলাকাবাসির ও দুইগ্রামের মানুষের জন্য চরম ভয়াবহ। লখপুর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য শেখ আলী আহম্মদ এর সাথে আলাপ করা হলে তিনি বলেন, ভেড়ীবাঁধে প্রথমে ফাটল ও পরে ৪এর ৩অংশ ভেঙ্গে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। অতিদ্রুত ভেঙ্গে যাওয়া স্থানে টেকসই ফাইলিং সহ মেরামত করা না হলে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করলে তা হবে জনগনের জন্য চরম ক্ষতি। এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বপন দাশ এর সাথে আলাপ করা হলে তিনি বলেন ভেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার বিষয়টি ঐ এলাকার জনপ্রতিনিধি শেখ আলী আহম্মদ আমাকে বৃহস্পতিবার অবগত করেছেন। আমি পানি উন্নয়ন বোর্ডের উর্দ্ধতন কর্মকতার্দের সাথে আলাপ করে যাহাতে অতিদ্রুত ভেড়ীবাঁধটি
মেরামত করা যায় সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলেও তিনি জানান।