পথের বাজারে ব্যাবসায়ি শামীম ধর্ষনের অভিযোগে আটক, পুলিশ পরিচয়সহ ব্লাক মেইলিং করত বিভিন্ন সময়ে

1099

ফুলতলা থানা প্রতিনিধি

খুলনার খানজাহান আলী থানার পথেরবাজার মোবাইল ফ্লেক্সিলোড (টেলিকম) ব্যবসায়ি শামীম আহমেদকে ধর্ষনের অভিযোগে আটক করেছে অভয়নগর থানা পুলিশ। মামলায় সংশ্লিষ্টতার কারণে আরো এক নারী আটক হয়েছে । এ পর্যন্ত পুলিশ  এই ঘটনায় মোট দুই জনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে।

সূত্রমতে জানা যায়, শামীম আহমেদ, পিতা-মৃত ইসহাক লস্কর, সাং-পাড়িয়ারডাঙ্গা, থানা-খানজাহান আলী ,জেলা-খুলনা দীর্ঘ দিন নিজেকে পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর রাসেল নামে পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছে । পুলিশের তথ্যমতে, অভয়নগরের শাহিনা আক্তার নামে এক মহিলার সহযোগিতায় শামীম আহমেদ এক তরুণীকে ধর্ষন করে এবং মোবাইল ফোনে নগ্ন ছবি তোলে। পরবর্তীতে ওই ধর্ষিতা তরুনীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে এবং ইন্টারনেটে ছবি ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে মোটা অংকের অর্থের দাবি করে। বিষয়টি নিয়ে ওই তরুনী গত ২০ আগষ্ট যশোর জেলার অভয়নগর থানায় ধর্ষন ও পর্ণগ্রাফি এ্যাক্ট আইনে মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং ১৮। মামলায়  শামীম আহমেদ (৩১), শাহিনা আক্তার ওরফে শাহানাজ পারভীন(৩৫) সহ ৩/৪ জনকে অভিযুক্ত করা হয়।

জানা যায়, গত ২২আগষ্ট অভয়নগর থানার ওসি তদন্ত এবং এস আই শাহা আলমের নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স খুলনার দৌলতপুর একটি হোটেলের সামনে থেকে শামীম আহমেদ কে আটক করে।  এছাড়া শামীমের পাড়িয়ারডাঙ্গা বাসা থেকে পুলিশের লোগো সম্বলিত  দুটি মাস্ক উদ্ধার করা হয়। এর আগে শামীম ঢাকা যাওয়ার পথে কোন এক স্থানে পুলিশের ইউনিফরম ফেলে রেখে দেয় বলে পুলিশকে তথ্য দেয় ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই শাহা আলম জানান, শামীম আহমেদ পুলিশ পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন মানুষকে  ভয়ভীতি দেখিয়ে আসত।  ধর্ষনের ঘটনায় শামীম ও তার সহযোগি শাহিনা আক্তার গ্রেফতার করার পর অপরাধ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন । আমরা অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতার করতে অভিযান চলমান রেখেছি।

যশোর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার “খ“ সার্কেল মুকিত সরদার জানান, ধর্ষনের ঘটনায় অন্যান্য জড়িতদের অচীরেই আইনের আওতায় আনা হবে। বিষয়টি পুলিশ তদন্তাধীন রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যাক্তি জানান, শামীম মোবাইলের ফ্লেক্সিলোডের ব্যবসার আড়ালে নানা অনৈতিক কাজের সাথে দীর্ঘ দিন জড়িত রয়েছে। এছাড়া শামীমের একটি সংঘবদ্ধ চক্র রয়েছে। যারা মূলত বিভিন্ন মানুষকে ব্লাক মেইলিং সহ নানা ভাবে হয়রানি করে আসছে। ‍

উল্লেখ্য, শামীম আহমেদ পথের বাজার বনিক সমিতির সভাপতি  কুদ্দুস লস্করের ছোট ভাই। শামীমের আটকের পর একটি মহল ধর্ষন মামলাটি ধামাচাপা দিতে মোটা অংকের অর্থ নিয়ে বিভিন্ন মহলে তদবির চালিয়ে যা‌চ্ছে।

আগামী প্রতিবেদনে বিস্তারিত আসছে (চলবে)