‘সবার সঙ্গে-সবার জন্যে’– স্লোগানে খুলনায় স্বজন-প্রিয় ফেস্টিবেল অনুষ্ঠিত

78

খুলনা ব্যুরো
‘সবার সঙ্গে-সবার জন্যে’ এ স্লোগানে বুধবার দিনভর খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার গংঙ্গারামপুর ইউনিয়নের বৃত্তি খলসিবুনিয়া গ্রামে শিশুদের মেধা বিকাশে স্বজন-প্রিয় ফেস্টিবেল অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় বৃত্তি খলসিবুনিয়া গ্রামবাসী ও খেদমত ট্রাস্ট এ ফেস্টিভেলের আয়োজন করে। এ আয়োজনে মূলতঃ শিশুদেরই আমন্ত্রণ জানানো হয়।
সেখানে শিশুরা দিনভর নাচ-গান, কবিতা-ছড়া পাঠসহ নানা উৎসবে মেতে ওঠে। স্থানীয় কয়েকটি গ্রামের কয়েকশ’ শিশু এ উৎসবে অংশ নেয়। যদিও তাদের সঙ্গে মা-বাবারাও উপস্থিত হন।
উৎসবে দেখা যায়, গ্রামের অজপাড়াগায়ের শিশুরা মঞ্চে উঠে সবার সামনেই নাচ-গান, কবিতা-ছড়া পাঠসহ নানা উৎসবে অংশ নিচ্ছে। তারা তাদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ঘটাচ্ছে। সঙ্গে থাকা তাদের মা-বাবারাও এতে উৎসাহিত হচ্ছে। সন্ধার পর শিশুদের অংশ গ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়েই সমাপ্তি ঘটে অনুষ্ঠানের।
ছোট্ট শিশু আঁচল শীল, প্রিতম রায় ও মৌ রায় এ আনন্দ-উৎসবে অংশ নিতে পেরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে। তাদের প্রতিভা দেখে অভিভাবকরাও আপ্লুত হয়ে পড়েন।
আয়োজক কমিটির সদস্য শাউল রায় বলেন, যেসব শিশুরা কোনদিন মঞ্চে উঠেনি। তারাও এখানে এসে সহপাঠি, বন্ধুদের সঙ্গে বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ নিয়ে পারফরমেন্স করছে। যা ইতিবাচক। এ ভাবেই এ শিশুরা একদিন সমাজে তার অধিকার নিয়ে কথা বলার সাহস যোগাবে।
ফেস্টিবেলের মূল আয়োজক খেদমত ট্রাস্ট’র চেয়ারম্যান জার্মানের ব্রিমন ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক প্রকৌশলী ড. বিভূতি ভুষণ রায় বলেন, পরস্পরের বন্ধনে বাঁধা এ সমাজে আমরা প্রত্যেকে স্ব স্ব ইচ্ছা ও স্বার্থানুযায়ি দলভুক্ত হই। একে অপরকে মূল্যায়ন, দেওয়া প্রতিশ্রুতি পালন, একে অন্যের প্রতি গভীর বিশ্বাস প্রতিনিয়ত এ সামাজিক বন্ধনকে শক্তিশালী করে। তাই এই বন্ধনকে টিকিয়ে রাখতে প্রত্যেককে তৎপর হয়ে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করার দরকার হয়।
তিনি বলেন, বৃহত্তর অর্থে আমরা সবাই একে অপরের স্বজন/আত্মীয়। তাই প্রেম-প্রীতি ও ভালোবাসায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আমরাই দেখাতে পারি যে, কর্মে ও ভাবনায় ‘সবার সঙ্গে-সবার জন্যে’ এ চিন্তাকে ধারণ করলে এ সমাজকে উচ্চতম অবস্থানে নেওয়া সম্ভব। আর এই চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আমরা বৃত্তি খলসিবুনিয়া গ্রামবাসী ও খেদমত ট্রাস্ট স্বজন-প্রিয় ফেস্টিবেল’র আয়োজন করেছি। এই ফেস্টিবেলের মূল ভূমিকায় ছিল গ্রামেরই শিশু ছেলে-মেয়েরা। এখানে যে যা পারে সেটি সমবেতভাবে প্রদর্শন করে। আর এভাবেই আগামী প্রজন্ম আজকের ঝিমিয়ে পড়া সমাজকে জাগিয়ে তুলতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে আমাদের বিশ্বাস।
এর আগে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন পর্বে আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ফেস্টিবেলের মূল আয়োজক খেদমত ট্রাস্ট’র চেয়ারম্যান জার্মানের ব্রিমন ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক প্রকৌশলী ড. বিভূতি ভুষণ রায়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে শিশুদের উৎসাহ প্রদান করে বক্তৃতা করেন বটিয়াঘাটা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান চঞ্চলা মন্ডল, ইউপি সদস্য দুলাল মহালদার, প্রভাষক দিপংকর রায়, জার্মান ইন্সটিটিউট অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী বাবু, খেদমত ট্রাস্টের রাম প্রসাদ সরদার, প্রশান্ত কুমার রায়, তপন রায়, শিশির রায়, প্রভাস রায়, রবীন্দ্রনাথ রায়, শ্যামল কান্তি রায়, শাউল রায় প্রমুখ।